৩০ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা পাবেন ‘বীর নিবাস’

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সারাদেশে গৃহহীন মানুষকে ঘর দেওয়ার পর এবার ৩০ হাজার অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাকে একতলা পাকা ঘর তৈরি করে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

৪ হাজার ১২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বীরনিবাস’ প্রকল্পটি গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) অনুমোদন করেছে। প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও সচিবরা রাজধানীর পরিকল্পনা কমিশনের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অবস্থান নিয়ে একনেকে অংশগ্রহণ করেন।

একনেক সভা শেষে এনইসিতে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, অনুমোদিত নতুন প্রকল্পগুলোর মধ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ‘অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবাসন নির্মাণ’ প্রকল্প ৪ হাজার ১২২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা খরচে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২৩ সালের অক্টোবর পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য মামুন আল রশিদ বলেন, প্রথমে ১৪ হাজার বীর নিবাসের প্রস্তাব থাকলেও চূড়ান্ত পর্যায়ে ৩০ হাজার বীর নিবাস নির্মাণের জন্য প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রায় সব মুক্তিযোদ্ধারই সাধারণত ভিটেমাটি আছে। কিন্তু যাদের একান্তই ভিটেমাটি নেই, তাদের জেলা প্রশাসক বা ইউএনওর মাধ্যমে জমির ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, তারা যেন প্রয়োজনে প্রকল্পের টাকা দ্রুত ছাড় করতে পারেন তার ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে অর্থায়নে যাতে চাপ না থাকে সেজন্য চলতি অর্থবছর থেকেই কাজ শুরু করতে হবে, যাতে চার অর্থবছর মিলেই টাকা ছাড় দেয়া যায়। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের ফলে গ্রামীণ অর্থ সরবরাহ বেড়ে যাবে।

মো. মামুন-আল-রশীদ বলেন, প্রতি জেলা উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বহুতল ভবন নির্মাণ করতে ২০১৮ সালের ৮ মার্চ একনেকে একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। ওই প্রকল্পের আওতায় দুই হাজার ২৭৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সারাদেশে ৫৩২টি ভবনে মোট ৮ হাজার ফ্ল্যাট নির্মাণের কথা ছিল। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের চাহিদা অনুযায়ী বাস্তবতার ভিত্তিতে কাজটি করতে ২০১৯ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি ওই প্রস্তাব প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

সারাদেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের ভিটায় দুই বেড, দুই টয়লেট, ডাইনিং ও কিচেনসহ ৬৩৫ বর্গফুটের এই ‘বীর নিবাস’ তৈরি করে দেওয়া হবে।

অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা, প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিধবা স্ত্রী ও সন্তানদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধি ও আর্থ সামাজিক অবস্থান উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর গৃহিত পদক্ষেপ ও উপহার হিসেবে এই প্রকল্প নেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *