২৫০ আশ্রয়প্রার্থী এজিয়ান সাগর থেকে উদ্ধার করেছে তুরস্ক

গ্রীক উপকূলীয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক তুর্কি জলসীমার মধ্যে জোরপূর্বক ঢুকিয়ে দেয়া ২৫০ আশ্রয়প্রার্থীকে সোমবার (২৬ এপ্রিল) এজিয়ান সাগর থেকে উদ্ধার করেছে তুরস্ক। আজ মঙ্গলবার তুরস্কের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা এ কথা জানিয়েছেন।

এদিন দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিম মুগলা প্রদেশের মারমারিস জেলার উপকূল থেকে ৮ জন আশ্রয়প্রার্থীকে উদ্ধার করেছে তুর্কি কোস্ট গার্ড। আর উত্তর-পশ্চিম ক্যানাক্কেল প্রদেশের উপকূল থেকে উদ্ধার করা হয় একটি প্লাস্টিকের নৌকায় থাকা আরও ৪৪ জন আশ্রয়প্রার্থীকে।

অপর একটি পৃথক অভিযানে উত্তর-পশ্চিম বালিকেসির প্রদেশের উপকূলে ৬১ জন আশ্রয়প্রার্থীকে উদ্ধার করেছে তুর্কি কোস্ট গার্ড। যখন তারা প্লাস্টিকের একটি নৌকায় করে লেসবস দ্বীপে পৌঁছানোর চেষ্টা করছিল।

এদিকে, আরও তিনটি পৃথক অভিযানের মধ্যে, তুরস্কের উপকূলীয় কর্তৃপক্ষ পশ্চিম ইজমির প্রদেশের উপকূল থেকে মোট ১৩৭ জন আশ্রয়প্রার্থীকে উদ্ধার করেছে।

এর মধ্যে ডিকিলি জেলার ডেনিজকয়ের কাছাকাছি তিনটি রাবারের নৌকায় একদল আশ্রয়প্রার্থী থাকার খবর পেয়ে কোস্টগার্ড কমান্ডের একটি নৌকা ওই অঞ্চলে প্রেরণ করা হয়। যেখান থেকে প্রায় ৮৬ জন আশ্রয়প্রার্থীকে রাবারের ডিঙি-তে করে তীরে নিয়ে আসা হয়।

গ্রীক কোস্ট গার্ড কর্তৃক পুশ করা অপর একটি রাবারের নৌকা থেকে আরও ২৩ জন আশ্রয়প্রার্থীকে উদ্ধার করা হয় ফোকা কাউন্টির আসলান কেপ থেকে। কোস্টগার্ডের কমান্ড দলগুলো সিসমে জেলার কেপ কারাবদুল্লাহর নিকটে আরও একটি রাবারের নৌকা থেকে ২৮ জন আশ্রয়প্রার্থীকে উদ্ধার করে।

নারী ও শিশুসহ উদ্ধারকৃত মোট ২৫০ জন আশ্রয়প্রার্থীকে রুটিন চেকের পরে প্রাদেশিক অভিবাসন কর্তৃপক্ষের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়।

এসব আশ্রয়প্রার্থীদের এভাবে অনিশ্চয়তার মধ্যে ঠেলে দেওয়া গ্রিসের এমন অমানবিক কর্মকান্ডে তুরস্ক বারবার নিন্দা জানিয়েছে এবং বলেছে যে, এটি নারী ও শিশুসহ দুর্বল অভিবাসীদের জীবনকে বিপন্ন করে মানবিক মূল্যবোধ এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *