শেখ হাসিনা এবং নরেন্দ্র মোদী’র ৫টি প্রকল্পের যৌথ উদ্বোধন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ শনিবার যৌথভাবে পাঁচটি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেছেন। এদিন বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা পর্ব শেষে প্রকল্পগুলো একযোগে উদ্বোধন করেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

দুই প্রধানমন্ত্রী যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করেছেন সেগুলো হচ্ছে- ভারতীয় মিত্র বাহিনীর শহীদ সদস্যদের স্মরণে বাংলাদেশের আশুগঞ্জে স্মৃতিস্তম্ভের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন, কুষ্টিয়ার শিলাইদহের রবীন্দ্রভবন কুঠিবাড়ীর বর্ধিত উন্নয়ন কাজ, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিদ্যুৎ উত্তোলনের সুবিধার জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়নের ভিত্তি, ঢাকা এবং নিউ জলপাইগুড়ির মধ্যে মিতালী এক্সপ্রেস যাত্রীবাহী ট্রেন পরিষেবা এবং ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে তিনটি নতুন সীমান্ত হাট।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী আলোচনা এবং একান্ত বৈঠক আজ বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর তেজগাওস্থ কার্যালয়ে (পিএমও) অনুষ্ঠিত হয়।

দ্বিপাক্ষিক আলোচনার আগে দুই প্রধানমন্ত্রী একান্তে বৈঠক করেন এবং যৌথভাবে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে তাঁদের উপস্থিতিতে কিছু প্রকল্প উদ্বোধন এবং বিভিন্ন সমঝোতা স্মারকের (এমওইউ) স্বাক্ষর করা হয়।

বাংলাদেশ রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জানায়, আজ বাংলাদেশ এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রীদ্বয়ের উপস্থিতিতে উভয় দেশের মধ্যে একটি নতুন আন্তঃদেশীয় ট্রেন “মিতালী এক্সপ্রেস” যেটি ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ির মধ্যে চলাচল করবে সেটা উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

এর মাধ্যমে দুই দেশের মধ্যে যাত্রীবাহী তৃতীয় রেল সার্ভিস উদ্বোধন হলো। আগে থেকে মৈত্রী এক্সপ্রেস ও বন্ধন এক্সপ্রেস চালু আছে।

ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি দূরত্ব ৫৯৫ কিলোমিটার। বাংলাদেশ থেকে সোমবার এবং বৃহস্পতিবার এটি ছেড়ে যাবে, এবং ভারতের জলপাইগুড়ি থেকে ছাড়বে রবিবার ও বুধবার। ট্রেনটি ভারতের নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ছাড়বে দুপুর ১২ টা ১০ মিনিটে, ঢাকা ক্যান্টনমেন্টে পৌঁছাবে রাত সাড়ে ১০টায়। একইভাবে ঢাকা থেকে ছাড়বে রাত ৯টা ৫০মিনিটে এবং ভারতে পৌঁছাবে সকাল ৭টা ৫ মিনিটে। ট্রেনটি দিনের বেলা ৪৫৬ আসন বিশিষ্ট এবং রাতে ৪০৮ আসন বিশিষ্ট অবস্থায় চলাচল করবে।

ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে- এসি চেয়ার ২ হাজার ৭০৫ টাকা, এসি সিট ৩ হাজার ৮০৫ টাকা এবং এসি বার্থ ৪ হাজার ৯০৫ টাকা। যার প্রতিটিতে ৫০০ টাকা ট্রাভেল ট্যাক্স নির্ধারিত। চিলাহাটি স্টেশন থেকেও যাত্রী ওঠানামা করতে পারবেন। এখানে চিলাহাটি থেকে নিউ জলপাইগুড়ির মধ্যে ভাড়া ১ হাজার ২৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে করোনা পরিস্থিতির পরে পরিস্থিতি এবং উভয় দেশের মধ্যে ভিসা প্রক্রিয়া স্বাভাবিক হলে ট্রেন চলাচল শুরু করবে। আজ শুধুমাত্র উভয় দেশের প্রধানমন্ত্রী এটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করে রাখলেন।

ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট রেলওয়ে স্টেশনে এ উপলক্ষে “মিতালী এক্সপ্রেস” ট্রেনটি সাজানো হয়। এ সময় ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ডি এন মজুমদার, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ভুবন চন্দ্র বিশ্বাস সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে দুদিনের সরকারী সফরে বাংলাদেশ সফর করছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ২৬ মার্চ সকালে ঢাকা আসেন তিনি। দুই দিনের সফর শেষে তিনি আজই আবার দিল্লি ফিরে যাবেন। -বিএসএস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *