ভেজাল ওষুধ: সাড়ে ১২ কোটি টাকা জরিমানা

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, গত বছর নকল-ভেজাল ওষুধ উৎপাদন ও বিক্রির দায়ে ২ হাজার ১৪৫টি মামলায় ১২ কোটি ৪১ লাখ ৬ হাজার ৪৮৪ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আজ রোববার জাতীয় সংসদে সরকারি দলের বেনজীর আহমদের এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী জানান, একই সময় ৩৯ জন আসামীকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও ৪৪টি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা এবং ৪৬ কেটি ৬২ লাখ টাকার মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হয়।

তিনি বলেন, এছাড়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জিএমপি গাইডলাইন যথাযথভাবে অনুসরণ না করায় ৪১টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স সাময়িকভাবে বাতিল করা হয়েছে। তিনটি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের ওষুধ উৎপাদন সকল প্রকার ওষুধ উৎপাদন স্থগিত এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৯টি ওষুধ উৎপাদন স্থগিত করা হয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, এছাড়া সরকারি বিশ্লেষক কর্তৃক মানবর্হিভূত ৯টি ওষুধের নিবন্ধন সাময়িকভাবে বাতিল এবং ড্রাগ কন্ট্রোল কমিটি থেকে ৯৯টি জেনেরিক ওষুধ বাতিল করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ওষুধের অনিয়ম প্রতিরোধের লক্ষ্যে বিদ্যমান আইনকে আরো যুগোপযুগি করতে কঠোর শাস্তির বিধান রেখে প্রস্তাবিত ওষুধ আইন অনুমোদন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *