বাংলা গানের যুবরাজ আসিফ আকবরের আজ শুভ জন্মদিন

আসিফ কুমিল্লা জেলায় ১৯৭২ সালের ২৫ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আলী আকবর। পাঁচ ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি ষষ্ঠ। তার স্ত্রীর নাম সালমা আসিফ মিতু। এ দম্পতির দুই সন্তান। তারা হলেন রণ এবং রুদ্র। ২০০১ সালে আসিফের প্রথম অ্যালবাম ও প্রিয়া তুমি কোথায়। যার মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া পান এ গায়ক এবং এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে ব্যাপক ব্যবসা সফল এ্যালবামসহ ব্যাপক জনপ্রিয় হয় এবং ভারতেও খুব জনপ্রিয় হয়। এরপর শিল্পী আসিফ আকবারকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০০২সালে তুমিই সুখী হও, তুমিই কথা রাখনি, তুমিও কাঁদবে একদিন, নামে একে একে তার পপ গানের এ্যালবামগুলিও বাজারে প্রভাব বিস্তার করে।

ছবিটি তোলা হয়েছিল 2001 সালে প্রথম এ্যালবাম “ও প্রিয়া তুমি কোথায়” ক্যাসেটের জন্য — শফিকুল আলম মিলন ( জুম মডেল ফটোগ্রাফি )।

এছাড়াও মিশ্র এ্যালবাম উড়ু উড়ু মন ভাল আছতো, ভালবাসা নয় অপরাধ, ভালোবাসা তোমাকে ধ্যনবাদ, ভালবাসতেও দিলেনা, ঝগড়ার গান (২০১৩) ন্যান্সির সাথে এমন অনেক বিখ্যাত এ্যালবামে নাম আছে এই গুণী শিল্পীর। এছাড়া গানের পাশাপাশি আসিফ তাঁর নিজের গানের মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করে থাকেন। তবে ২০১৯ সালে পরিপূর্ণ অভিনেতা হিসেবে ‘গহীনের গান’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। এরই মধ্যে আড়াই হাজারের বেশি গান গেয়েছেন আসিফ আকবর। যদিও গায়ক যে হবেন একদিনও ভাবেননি তিনি।

গানের নেশা আসিফকে কঠিন এক বাস্তবতার মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিয়েছিল। এতটাই অর্থকষ্টে ছিলেন যে খ্যাতি পাওয়ার আগ পর্যন্ত ঈদের আনন্দ পর্যন্ত আসেনি তাঁর জীবনে। নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ঠিক করেছেন আসিফ। গত বুধবার এক সূত্রে জানা গেছে তিনি বলেছেন ‘আমি গেয়ে যেতে চাই। আমার সঙ্গে ৫০-৬০ জন গীতিকার ও সুরকার আছেন, যাঁরা নিয়মিত গান তৈরি করছেন। হিসাব করেছি, ৫৫ বছর যদি সুস্থ থাকি, হাতে আছে দুই হাজার দিন। প্রতিদিনও যদি গেয়ে যাই, পাঁচ হাজার গান হবে না। তবে আমার খুব চাওয়া, আমার গাওয়া পাঁচ হাজার গান যেন থাকে। আমার মৃত্যুর পরও যেন সবাই আমার গান শোনে।’ ২০০১ থেকে ২০০৬ পর পর ৬ বছর অ্যালবাম বিক্রির দিক থেকে শীর্ষে ছিলেন আসিফ। তার প্রথম এলবাম ৫.৫ মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়েছিল। যা অডিও ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

প্রিয় শিল্পী আসিফ আকবারের আজ শুভ জন্মদিন। এফএম নিউজের পক্ষ থেকে গভীর ভালোবাসা জানাই শুভ জন্মদিন আসিফ আকবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *