বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে খন্দকার ইসমাইলের বিশেষ সম্মাননা লাভ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকীতে টিভি মিডিয়া এটিএন বাংলা কতৃক বিশেষ সম্মাননা লাভ করেন দেশের মঞ্চ ও টেলিভিশনের জনপ্রিয় উপস্থাপক খন্দকার ইসমাইল। গত ১৭ মার্চ ‘জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস’ উপলক্ষে বিএফডিসি চত্তরে এটিএন বাংলা ও বিএসবি ক্যমিব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের যৌথভাবে আয়োজিত ‘শিশুমেলা’ অনুষ্ঠানে খন্দকার ইসমাইল ও শ্রাবন্য তৌহিদাকে উপস্থাপনার জন্য বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন এটিএন বাংলার প্রতিষ্ঠাতা, চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, এটিএন বাংলার সংবাদ বিভাগের উপদেষ্টা হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ, বিএসবি ক্যমিব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপ’র চেয়ারম্যান লায়ন এম কে বাশার।

খন্দকার ইসমাইল ১৯৯১ সাল থেকে টেলিভিশনে কাজ করছেন। এসময় অভিনয়ের পাশাপাশি ছোট ছোট অনুষ্ঠান উপস্থানা করতেন। ১৯৯৭ সালে বিটিভিতে খাগড়াছরি স্টেডিয়াম থেকে ‘শান্তিচুক্তি’র শর্ত মতে অস্ত্র জমা দেয়ার অনুষ্ঠানটি সরাসরি উপস্থাপনা করার সুযোগ হয় তার। এ অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনার পর বিটিভির প্রযোজক মোস্তফা কমাল সৈয়দ তাকে বিটিভির জন্যে ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান করার দায়িত্ব দেন। তখন প্যাকেজ অনুষ্ঠানের আওতায় বিনোদনমূলক ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘বহুরূপী’ এবং বাংলাদেশের প্রথম টক’শো ‘আড্ডা’ উপস্থাপনা করে দর্শক মহলে বেশ জনপ্রিয় হন। ২০০১ সালে সরকার পরিবর্তনের ফলে রাজনৈতিক অযুহাতে অনুষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়ে যায়।
এরপর থেকে তিনি উপস্থাপনার পাশাপাশি ‘ডায়ানা’ নামক একটি ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে কাজে ব্যস্ত জীবন পার করেন। খন্দকার ইসমাইল বর্তমানে এটিএন বাংলার ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘স্মাইল শো’ ও ‘ঈদের বাজনা বাজেরে’ এই দুটি অনুষ্ঠান নিয়মিত উপস্থাপনা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *