জয়ের মিশন – আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ

একমাত্র টেস্টে ইনিংস ব্যবধান জয় পাওয়া ফুরফুরে বাংলাদেশ সাত মাস পর ওয়ানডে খেলতে নামছে আজ। এ সিরিজ দিয়েই দীর্ঘ ১৯ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টানছেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। 

স্বভাবতই এ সিরিজে সবার নজরে কাপ্তান। বিশ্বকাপের পর এই প্রথম খেলতে নামছেন তিনি।

বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ সবশেষ ওয়ানডে খেলেছে শ্রীলংকার মাটিতে। যে ম্যাচে ছিলেন না মাশরাফি থেকে শুরু করে সাকিব আল হাসান, সাইফুদ্দিনসহ কয়েকজন শীর্ষ ব্যাটসম্যান। ফলে স্বাগতিকদের কাছে হোয়াইট ওয়াশের লজ্জা নিয়ে দেশে ফেরে তামিমের নেতৃত্বে থাকা লাল সবুজরা।

এরপর দীর্ঘ সময়ে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে একাধিকবার মাঠে নামা হলেও ওয়ানডে থেকে দূরে রয়েছে বাংলাদেশ। ফলে, মাশরাফির বিদায়ের এ সিরিজে জয়ের ধারায় ফেরার মিশন নিয়ে আজ সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামছে স্বাগতিকরা।

রোববার বেলা ১টায় সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি।

ম্যাচের আগে গতকাল শনিবার দিনভর আলোচনা ছিল মাশরাফির বিদায় নিয়ে। প্রতিপক্ষ নিয়ে চিন্তার ভাজ খুলে এদিন কাপ্তানকে একের পর এক ছোঁড়া প্রশ্নে শেষ পর্যন্ত অনাকাঙ্খিত ঘটনাও ঘটে। রেগে যান মাশরাফি।

তবে আজকের ম্যাচ নিয়েও হয়েছে অনেক পরিকল্পনা ও আলোচনা। জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশের সবচেয়ে চেনা প্রতিপক্ষ। দেশের মাটিতে পরিষ্কার ফেভারিট স্বাগতিকরা। ওয়ানডে ক্রিকেটে টানা ব্যর্থতা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য এটাই সেরা সুযোগ বলে মনে করছে টাইগাররা।

তবে অধিনায়ক হিসেবে মাশরাফির শেষ সিরিজ ধরে নেয়া হলেও এখনই অবসরের সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন না তিনি। পাকিস্তান সফরে একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচের দলে রাখলে তিনি খেলতে প্রস্তুত। অধিনায়ক মাশরাফির শেষের শুরুতে ওয়ানডে অভিষেক হয়ে যেতে পারে দুই তরুণ নাঈম শেখ ও আফিফ হোসেনের। বিয়ের কারণে ছুটিতে থাকা সৌম্য সরকারের জায়গায় আজ নাঈম শেখকে দেখা যেতে পারে। এছাড়া সাব্বির রহমানের জায়গায় সাত নম্বরে দেখা যেতে পারে আফিফ হোসেনকে।

ওয়ানডে ক্রিকেটে সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে হার বাংলাদেশের। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের পর ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে হারে টাইগাররা। এরপর শ্রীলংকায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের তেতো স্বাদ পায় তামিম ইকবালের দল।

ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য জিম্বাবুয়ের চেয়ে সহজ প্রতিপক্ষ আর হতে পারে না। মাশরাফি বলেন, ‘আমরা অনেক দিন পর নামছি। এটা একটা ব্যাপার। প্রথম ম্যাচে সবকিছু একটু মানসিকভাবে গুছিয়ে নিতে হয়।’

টাইগার অধিনায়ক বলেন, ‘শুরুটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দলের পরিবেশ যথেষ্ট ভালো। নতুন কিছু ক্রিকেটার এসেছে। তারা অনেক রোমাঞ্চিত। সুযোগ পেলে ভালো করতে চায়। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আশা করি ভালো করতে পারব।’

বাংলাদেশের রানমেশিন এখন মুশফিকুর রহিম। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টেও ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ওয়ানডেতেও মুশফিক ভালো করবেন বলে বিশ্বাস মাশরাফির। সর্বশেষ ওয়ানডে দল থেকে সাত পরিবর্তন এনে দল সাজিয়েছে স্বাগতিকরা।

এই সিরিজে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করলেও অবশ্য খুব একটা লাভ হবে না বাংলাদেশের। র‌্যাংকিংয়ে ৮৬ থেকে মাত্র এক রেটিং পয়েন্ট বাড়বে স্বাগতিকদের। আবার ২-১-এ সিরিজ জিতলেও এক রেটিং পয়েন্ট হারাতে হবে। আর জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করলে র‌্যাংকিংয়ে শ্রীলংকার নিচে আটে নেমে যেতে হবে।

সফরকারীদের সঙ্গে টেস্টে জয়ের হার সমান হলেও ওয়ানডেতে এগিয়ে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত উভয়ের ৭২ বারের দেখায় টাইগাররা জয় পেয়েছে ৪৪টিতে। জিম্বাবুয়ে জিতেছে ২৮টিতে।

সবশেষ উভয়ের দেখা হয়েছে ২০১৭ সালে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে ৭ উইকেটের বড় জয় পেয়েছিল মাশরাফিরা।

সিলেটের মাঠে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি ওয়ানডে হয়েছে। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে খেলেছিল বাংলাদেশ। ম্যাচের আগেরদিন পর্যন্ত উইকেটে অনেক ঘাস ছিল। কিন্তু ম্যাচের দিনে ঘাস ছাঁটাই করা হতে পারে। তবে উইকেটে ব্যাটসম্যানদের জন্য সুবিধা থাকবে। দিবা-রাত্রির ম্যাচ হওয়ায় শিশির পার্থক্য গড়ে দিতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *