চীন বলেছে সঠিক সময়ে সব প্রকল্প শেষ হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

FOREIGN-MINISTER
চীন বলেছে সঠিক সময়ে সব প্রকল্প শেষ হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

করোনা ভাইরাসে নাকাল পুরো বিশ্ব। এমন অবস্থায় পদ্মা সেতুসহ দেশে চলমান বিভিন্ন চীনা প্রকল্পের কাজে ধীর গতি। তবে কাজ কিছুটা বাধাগ্রস্থ হলেও সব প্রকল্পের কাজ সঠিক সময়েই শেষ হবে বলে জানিয়েছে চীন এমনটি বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এ কথা জানান মন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমার সঙ্গে তাদের (চীনের) পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও কাউন্সিলর উয়াংয়ের টেলিফোনে আলাপ হয়েছে। উনি বলেছেন, টেম্পোরারি অনেকে (প্রকল্প সংশ্লিষ্ট চীনা কর্মী) আসতে পারতেছে না। বলেছেন যে, এটাতে কোনো অসুবিধা নাই। যখন অবস্থা ইমপ্রুভ করবে, তখন আমরা ডাবল এফোর্ট দিয়ে… অল প্রজেক্টস অন টাইম শেষ হবে।’

গেল বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশে উহানে প্রথমবারের মতো প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ২৮৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৯৫ হাজার ৪৮১ জন। চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৩ হাজার ৬৮৮ জন। শুধুমাত্র চীনের মূল ভূখণ্ডেই আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৪৩০ এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ১২ জনের। চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা দক্ষিণ কোরিয়ায়। সেখানে এখন পর্যন্ত ৫ হাজার ৭৬৬ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে ৩৫ জন।

অপরদিকে চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ইতালিতে। সেখানে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ হাজার ৮৯ এবং মৃত্যু হয়েছে ১০৭ জনের।

নতুন এ করোনা ভাইরাস নিয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘বৈশ্বিক সতর্কতা’ জারি করার পর ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকে চীনা নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা স্থগিত করে বাংলাদেশ সরকার। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার হিসাবে চীনাদের অংশগ্রহণ রয়েছে পদ্মা সেতু, পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র, বাস-র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি), কর্ণফুলী টানেলসহ অনেক বড় প্রকল্পে।

বাংলাদেশে চলমান প্রকল্পের কাজ সঠিক সময়ে শেষ করার জন্য চীনা নাগরিকদের জন্য ‘অন অ্যারাইভাল ভিসা’ পূনরায় চালু করার আহবান জানিয়েছে চীন। গতকাল বুধবার এ আহবান জানান বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং।

রাষ্ট্রদূতের ঐ বক্তব্যের বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তথ্যটা আমার কাছে বেখাপ্পা লাগছে। কারণ আমরা দেখেছি অধিকাংশ লোক (আক্রান্ত ও মৃত) উহান এবং হুবেই প্রদেশের। অন্যান্য দেশে একটা দুইটা করে হচ্ছে। অন্য দেশের মধ্যে সাউথ কোরিয়া, ইতালি আর ইরানের খবর আপনাদের মাধ্যমে শুনেছি। সুতরাং উনি যে বক্তব্য দিয়েছেন, আমি ঠিক জানি না, উনি কোন প্রেক্ষিতে বললেন। আমরাতো দেখি, হাজার হাজার লোক উহান থেকেই হয়েছে। ওটাকে আমরা বলি, এপিসেন্টার অব করোনা ভাইরাস।’

চীনের জন্য অন অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধের পক্ষে যথেষ্ট যুক্তি রয়েছে বলে জানান এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, ‘আমরা নিরুৎসাহিত করতেছি সবাইকে, এ অবস্থায় যাতে আমাদের দেশে না আসে। আর কারও যদি নেহাত আসতে হয়, প্রথমে টেস্ট করে মেডিকেল সার্টিফিকেট দিয়ে দেখাবে যে, তার করোনা ভাইরাস নেগেটিভ।’

বাংলাদেশে আসার জন্য টিকেট কাটা যাত্রীদের ফ্লাইটে ওঠার আগেই পরীক্ষা করে দেখতে এয়ারলাইন্সগুলোকে অনুরোধ করা হয়েছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এর আগে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এসএমই পণ্য মেলার একটি আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *