করোনা ঠেকাতে ভারতজুড়ে কারফিউ জারি

বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে ভারতে দ্রুত বিস্তার ঘটছে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস। প্রতিনিয়ত বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। চলমান এই মহামারি পরিস্থিতিতে এবার ভারতজুড়ে কারফিউ জারির ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার প্রধান।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া এক ভাষণে এ কারফিউ ঘোষণা দেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

ভাষণে মোদি বলেন, ‘আগামী রোববার সকাল ৭টা থেকে প্রতিদিন রাত ৯টা পর্যন্ত প্রত্যেক নাগরিককে বাধ্যমূলক এই কারফিউ মেনে চলতে হবে। এ সময়টায় বাড়িতে থাকুন, কোন ধরনের জমায়েতে যাবেন না, কেবল যারা অত্যাবশ্যক কাজকর্মের সঙ্গে জড়িত তারাই বেরোবেন।’

তিনি বলেন, ‘ওইদিন (রোববার) বিকেল ৫টায় আমরা আমাদের ব্যালকনি, জানালা বা দরজায় দাঁড়াব ৫ মিনিটের জন্য। আমরা সেই সময় ঘণ্টা ও সাইরেন বাজিয়ে এবং হাততালি দিয়ে কিংবা বাটি বাজিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করব তাদের উদ্দেশে, যারা অত্যাবশ্যক কাজগুলি করে চলেছেন।’

দেশবাসীর প্রতি অনুরোধ জানিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কেউ যেন আতঙ্কিত হয়ে বেশি করে কেনাকাটা শুরু না করেন। দুধ, ওষুধ ও খাদ্যের মতো প্রয়োজনীয় দ্রব্যের কোনও অভাব হবে না। এই একদিনের অভ্যাসের ফলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নতুন শৃঙ্খলা তৈরি হবে। সংযম ও সংকল্পকে কাজে লাগিয়েই সকলকে করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়তে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের থেকে আগামী কয়েকটি দিন চেয়ে নিচ্ছি, আমি আপনাদের নিকট সময় চাইছি। করোনাভাইরাস সভ্যতার সঙ্কট। বিশ্বযুদ্ধের চেয়েও বেশি সংখ্যক দেশ এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর কোনও চিকিৎসা নেই। তাই আমাদের সুস্থ থাকতে হবে।

ভিড়কে এড়িয়ে আমাদের ঘরে থাকতে হবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা কঠিন। কিন্তু আপনি যদি মনে করেন আপনি অনায়াসে যেখানে সেখানে ঘুরতে পারেন এবং আপনার কোনও ঝুঁকি নেই, সেটা ঠিক নয়। এতে আপনি নিজেকে ও আপনার পরিবারকে বিপদে ফেলছেন বলেও উল্লেখ করেন মোদি।

এদিকে, আজ বৃহস্পতিবার দেশটিতে নতুন করে ১৮ জনের শরীরে ধরা পড়েছে করোনা সংক্রমণ। এর ফলে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়ে দাঁড়িয়েছে ১৭৩ জনে। মারা গেছেন এখন পর্যন্ত চারজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *